সংকটকালে প্রথমবারের মতো রাখাইন পরিদর্শনে সু চি

সংকটকালে প্রথমবারের মতো রাখাইন পরিদর্শনে সু চি

প্রবাহ ডেস্ক : রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে দমন-পীড়ন ও হত্যাকা-ের পর এই প্রথম বিধ্বস্ত রাখাইন পরিদর্শনে গেছেন দেশটির নেত্রী অং সান সু চি। কোনোরকম পূর্ব কোনো ঘোষণা ছাড়াই বৃহস্পতিবার রাখাইনে যান তিনি।
মিয়ানমার সরকারের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, একদিনের এই সফরে রাখাইনের দুটি শহরে যাবেন তিনি। সু চি বর্তমানে রাখাইনের রাজধানী সিতোয়েতে অবস্থান করছেন। তবে সু চির সফর সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানাতে চায়নি তার দপ্তর। রয়টার্স জানিয়েছে, সু চির দপ্তরের মহাপরিচালক জ হোতে বলেছেন, সু চি মংডুতে যাবেন। এদিকে সরকারের একজন মুখপাত্র এএফপিকে জানিয়েছেন, সিতোয়ে থেকে সু চি মংডু যাবেন এবং পরে বুথিডং সফর করবেন। এ দুটি এলাকা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং সেখান থেকে হাজার-হাজার রোহিঙ্গা মুসলমান প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট রাখাইনের ওই অঞ্চলে নতুন করে মিয়ানমারবাহিনী অভিযান চালিয়ে নির্বিচারে হত্যা, জ্বালাও-পোড়াও শুরু করে। এর ফলে ৬ লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। জাতিসংঘ ওই অভিযানকে ‘জাতিগত নির্মূল অভিযান’ হিসেবে বর্ণনা করেছে। বুধবার রাতেও সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা। এ ছাড়া গত কয়েক দশকে নির্যাতনের মুখে বিভিন্ন সময়ে আরো প্রায় ৪ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করে। নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ী সু চির দল এনএলডি ২০১৫ সালের নির্বাচনে বিপুল বিজয়ের মধ্যে দিয়ে মিয়ানমারের ক্ষমতায় আসে। তখন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় প্রত্যাশা করেছিল, সুচি হয়ত এবার রাখাইনে শান্তি ফেরানোর উদ্যোগ নেবেন। কিন্তু রোহিঙ্গাদের নাগরিক হিসেবে মেনে নেওয়া কিংবা অধিকারবঞ্চিত ওই জনগোষ্ঠীর দুর্দশা নিজের চোখে দেখতে রাখাইনে যাওয়ার কোনো আগ্রহ দেখাননি তিনি। এদিকে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যাকা- এবং দমন-পীড়নের বিরুদ্ধে কোনো অবস্থান না নেওয়ায় আন্তর্জাতিকভাবে বেশ সমালোচিত হয়েছেন সুচি। বিশ্লেষকরা মনে করেন, সেনাবাহিনীর দিক থেকে হুমকি আসতে পারে, এমন আশঙ্কায় সু চি তাদের কর্মকা-ের সমালোচনা করতে চান না।

SHARE THIS NEWS

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top