বাল্যবিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন রোধ করতে আগ্রহী ৬ প্রার্থী

বাল্যবিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন রোধ করতে আগ্রহী ৬ প্রার্থী

সংরক্ষিত-৪

আসাফুর রহমান কাজল
দারিদ্রতা, ইভটিজিং, বখাটেদের চলাচল, মাদক, রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ সমস্যা, বাল্যবিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন এবং মাদক-সন্ত্রাস মুক্ত করে এলাকার উন্নয়ন করতে চায় সম্ভাব্য ৬ কাউন্সিলর (সংরক্ষিত আসন-৪) প্রার্থী। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ১১, ১২ এবং ১৩নং ওয়ার্ড নিয়ে সংরক্ষিত আসন ৪ গঠিত।
বর্তমান যেভাবে এলাকাবাসীর সেবা দিয়ে যাচ্ছেন আগামীতে সেভাবে সেবা দিয়ে যাবেন বলে জানান বর্তমান কাউন্সিলর (সংরক্ষিত-৪) পারভিন আক্তার।
বিগত দিনের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে আগামীতে মাদক-সন্ত্রাস, নারী নির্যাতন, বাল্যবিবাহ রোধ, ড্রেনেজ, ড্রেনের স্লাব, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করতে চান বলে জানান, সাবেক কাউন্সিলর ও মহানগর মহিলা দলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদিকা আফরোজা জামান। তিনি বলেন, আমি আশা করি ২০০৮ সালের নির্বাচনে যেভাবে এলাকাবাসী আমার পাশে ছিল আগামী নির্বাচনেও একইভাবে পাশে থেকে উন্নয়নে সুযোগ দেবে। তবে তিনি ফেয়ার নির্বাচন নিয়ে কিছুটা সংশয়ে রয়েছে বলে জানান।
এ আসনের এলাকায় দারিদ্রতা, ইভটিজিং, বখাটেদের চলন, মাদক, রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ সমস্যা, বাল্যবিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন রয়েছে বলে জানান স্বতন্ত্র প্রার্থী মোসাঃ নাসিমা বেগম। তিনি বলেন, আমি জয়যুক্ত হলে দরিদ্রদের উন্নয়ন, মাদক, নারী শিশু নির্যাতন, ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহ নিরসনে কাজ করবো। মুরব্বিদের নিয়ে আলোচনা করে এলাকাবাসীর বিভিন্ন সমস্যা নিরসনে কাজ করবো। কিশোর-কিশোরীদের নিয়ে বিভিন্ন প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করা এবং আগামী নির্বাচন ফেয়ার ও শান্তিপূর্ণ হবে বলে তিনি আশা করেন।
দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, মাদক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কাজ করবেন বলে জানান সিডিসি টাউন ফেডারেশনের সেক্রেটারী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সোনালী আক্তার। তিনি বলেন, এ এলাকায় যাদের নাগরিক সেবা পাওয়ার কথা তারা সে সব সেবা অনেকেই পাচ্ছে না। প্রকৃত অসহায় মানুষ অনেক সেবা থেকে পিছিয়ে রয়েছে। আমি নির্বাচিত হলে বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে এলাকাবাসীর উন্নয়নে কাজ করবো। এলাকাবাসী যেন তাদের প্রাপ্য অধিকার নিশ্চিত করতে ভোট কেন্দ্রে যায় এবং দেখে, শুনে বুঝে তাদের অধিকার আদায়ে সক্ষম এমন প্রার্থীকে ভোট দেয়। নারী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনের মাঠে নেমে অনেক অপ্রচারের শিকার হতে হচ্ছে এবং নির্বাচনে কিছু প্রার্থী কালো টাকা ও প্রভাব খাটাতে পারে বলে মনে তিনি মনে করেন।
মাদক নির্মূল, ড্রেনেজ সমস্যা, ইভটিজিং রোধ, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, মশার উৎপাত থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষায় নানা উন্নয়নমুখি কাজ করতে চান যুব মহিলা লীগের মিসেস লাভলী হোসেন। তিনি বলেন, দলীয় কাজের সাথে প্রতিনিয়ত আমি এলাকাবাসীর বিভিন্ন সমস্যায় কাজ করে যাচ্ছি। আমি এলাকাবাসীর সমস্যায় ছিলাম, আছি এবং আগামীতেও থাকবো। আমি মনে করি এলাকাবাসী আমার এ শ্রমকে মূল্যায়ন করবে এবং আসন্ন নির্বাচনে আমাকে জয়যুক্ত করবে।
বৃদ্ধদের পুনর্বাসন, ভিক্ষুকমুক্তকরণ, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, মশার উৎপাত রোধ, বিভিন্ন ভাতাদি প্রকৃত ব্যক্তিকে প্রদান করা, বাল্যবিবাহ, নারী নির্যাতন রোধকল্পে কাজ করবেন বলে জানান ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সাজিয়া আক্তার কল্পনা। তিনি বলেন, দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তাহলে আমি নির্বাচনে অংশ নিয়ে এলাকাবাসীর উন্নয়নে কাজ করতে চাই।
আলমনগর এলাকার মাছ বিক্রেতা মোঃ আশরাফুল বলেন, আমাদের কথা শোনার মত সময় যার আছে এমন একজন মহিলা কাউন্সিলর আমরা চাই।
হাউজিং বাজার এলাকার ব্যবসায়ী মোঃ নাসিম হোসেন বলেন, এলাকার সমস্যা দূর করবে বিশেষ করে ড্রেনেজ সমস্যা, মাদক, বাল্যবিবাহ, নারী নির্যাতন রোধ করবে এমন মানুষকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবো।

 

SHARE THIS NEWS

One comment

  1. narira narider odhikar niye egiye ashle ekdin oboshshoi ei shomohsha shomnadhan hobe.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top