দ.আফ্রিকার জয় ভারতের রিস্ট স্পিনারদের উড়িয়ে

দ.আফ্রিকার জয় ভারতের রিস্ট স্পিনারদের উড়িয়ে

স্পোর্টস ডেস্ক : ভারতের রিস্ট স্পিনারদের খেলার একটা পথ অবশেষে পেল দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা। কী করে পাল্টা আক্রমণে কুলদীপ যাদব আর যুজবেন্দ্র চেহেলের চ্যালেঞ্জ উড়িয়ে দিতে হয় দেখালেন ডেভিড মিলার আর হাইনরিখ ক্লাসেন। তাদের ব্যাটে সিরিজে টিকে থাকল স্বাগতিকরা।
জোহানেসবার্গে বৃষ্টি বিঘিœত চতুর্থ ওয়ানডেতে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৫ উইকেটে জিতেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যবধান কমিয়েছে ভারতের সঙ্গে। প্রথম তিনটিতে জেতা অতিথিরা ছয় ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে ৩-১ ব্যবধানে।
ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেটে ২৮৯ রান করে ভারত। দলটির ইনিংসের ৩৫তম ওভারে বৃষ্টির জন্য বেশ কিছুক্ষণ খেলা বন্ধ থাকলেও সে সময়ে ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমেনি।
দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের ৭.২ ওভারে বৃষ্টি নামলে আবার খেলা বন্ধ হয়ে যায়। সে সময়ে স্বাগতিকদের স্কোর ছিল ১ উইকেটে ৪৩ রান। আবার খেলা শুরু হলে দলটি পায় ২৮ ওভারে ২০২ রানের লক্ষ্য। যা ১৫ বল হাতে রেখে পেরিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা।
শুরুতেই রোহিত শর্মাকে হারায় ভারত। সফরে আট ইনিংসে ষষ্ঠবারের মতো এই ওপেনারের উইকেট নেন কাগিসো রাবাদা। দ্বিতীয় উইকেটে শিখর ধাওয়ান ও বিরাট কোহলির টানা দ্বিতীয় শতরানের জুটিতে শুরুর ধাক্কা সামাল দেয় ভারত।
দারুণ ছন্দে থাকা কোহলিকে ফিরিয়ে ১৫৮ রানের জুটি ভাঙেন ক্রিস মরিস। ৮৩ বলে ৭টি চার ও একটি ছক্কায় ৭৫ রান করে বিদায় নেন ভারত অধিনায়ক।
বৃষ্টির বাধায় খেলা বন্ধ হওয়ার আগেই সেঞ্চুরি তুলে নেন ধাওয়ান। তার ক্যারিয়ারের ত্রয়োদশ। ২০০১ সালের পর দক্ষিণ আফ্রিকায় স্বাগতিকদের বিপক্ষে ভারতের কোনো ওপেনারের প্রথম সেঞ্চুরি। নিজের শততম ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করা প্রথম ভারতীয় আর সব মিলিয়ে নবম ক্রিকেটার হলেন ধাওয়ান।
বৃষ্টির পর আবার খেলা শুরু হলে দ্রুত ফিরে যান ধাওয়ান। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তার তৃতীয় সেঞ্চুরি থামে ১০৯ রানে। তার ১০৫ বলের ইনিংসটিতে ১০টি চারের পাশে ছক্কা দুটি।
এই উইকেট দিয়েই যেন দিক হারায় ভারত। শেষের দিকে মহেন্দ্র সিং ধোনি ছাড়া আর কেউ সেভাবে এগিয়ে আসতে না পারায় তিনশ পর্যন্ত যেতে পারেননি অতিথিরা।
রান তাড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের শুরুটা ছিল সাবধানী। ১৫তম ওভারে ৭৭ রানের মধ্যে ফিরে যান টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান।
চোট কাটিয়ে ফেরা এবি ডি ভিলিয়ার্স ফিরে যান রানের গতি কিছুটা বাড়িয়ে। আসল কাজটা করে দেয় মিলার-ক্লাসেনের ৭২ রানের পঞ্চম উইকেট জুটি। ২৮ বলে ৩৯ রান করে বিদায় নেন মিলার।
আন্দিলে ফেলুকওয়ায়োকে নিয়ে বাকিটা শেষ করেন ক্লাসেন। ম্যাচ সেরা এই ব্যাটসম্যান ২৭ বলে অপরাজিত থাকেন ৪৩ রানে। মাত্র ৫ বলে অপরাজিত ২৩ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন ফেলুকওয়ায়ো।
৬ ওভারে ৫১ রানে ২ উইকেট নেন চায়ানাম্যান কুলদীপ। ৫.৩ ওভারে ৬৮ রান দিয়ে ১ উইকেট নেন লেগ স্পিনার চেহেল।
আগামী মঙ্গলবার পোর্ট এলজাবেথের সেন্ট জর্জেস পার্কে হবে পঞ্চম ওয়ানডে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ভারত: ৫০ ওভারে ২৮৯/৭ (রোহিত ৫, ধাওয়ান ১০৯, কোহলি ৭৫, রাহানে ৮, আয়ার ১৮, ধোনি ৪২*, পান্ডিয়া ৯, ভ্বুনেশ্বর ৫, কুলদীপ ০*; মর্কেল ১/৫৫, রাবাদা ২/৫৮, নগিডি ২/৫২, মরিস ১/৬০, ফেলুকওয়ায়ো ০/৩৮, দুমিনি ০/২০)
দক্ষিণ আফ্রিকা: (২৮ ওভারে লক্ষ্য ২০২) ওভারে ২৫.৩ ওভারে ২০৭/৫ (মারক্রাম ২২, আমলা ৩৩, দুমিনি ১০, ডি ভিলিয়ার্স ২৬, মিলার ৩৯, ক্লাসেন ৪৩*, ফেলুকওয়ায়ো ২৩*; ভুবনেশ্বর ০/২৭, বুমরাহ ১/২১, কুলদীপ ২/৫১, পান্ডিয়া ১/৩৭, চেহেল ১/৬৮)
ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৫ উইকেটে জয়ী
ম্যান অব দ্য ম্যাচ: হাইনরিখ ক্লাসেন

SHARE THIS NEWS

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top