মোংলা বন্দরে বাণিজ্যিক জাহাজে নিরাপত্তা  প্রহরী দিচ্ছেনা অনেক শিপিং এজেন্ট

মোংলা বন্দরে বাণিজ্যিক জাহাজে নিরাপত্তা প্রহরী দিচ্ছেনা অনেক শিপিং এজেন্ট

নৌ-পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা

আজাদুল হক, বাগেরহাট
বাগেরহাটের মোংলা বন্দরে আগত দেশি-বিদেশি সকল বাণিজ্যিক জাহাজে নিরাপত্তা প্রহরী (ওয়াচম্যান) নিয়োগ দিচ্ছেনা অনেক শিপিং এজেন্ট। মোংলা বন্দরে আগত পণ্যবাহি জাহাজগুলোতে চুরি-ডাকাতি ঠেকাতে ওইসব জাহাজে নিরাপত্তা প্রহরী রাখার বিধান রাখা হলেও তা মানছেন না অনেক শিপিং এজেন্ট। নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা কমিটির সিদ্ধান্ত না মানায় মোংলা বন্দরে ওয়াচম্যানদের মাঝে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। এ কারণেই বন্দরের স্টিভিডরিং ওয়াচম্যানদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করেছে।
মোংলা বন্দর স্টিভিডরিং ওয়াচম্যান ওয়েলফেয়ার সংঘের নেতৃবৃন্দ বলছেন, নৌ পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের অধীন মোংলা বন্দরের উপদেষ্টা কমিটির ১৪তম সভায় জাহাজে নিরাপত্তা প্রহরী (ওয়াচম্যান) নিয়োগের সিদ্ধান্ত হলেও সংশ্লিষ্ট অনেক শিপিং এজেন্টের (বন্দরে আগত জাহাজের প্রতিনিধি) খামখেয়ালীপানায় তা কার্যকর করা হচ্ছেনা। সিদ্ধান্ত না মানা ও আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মোংলা বন্দর স্টিভিডরিং ওয়াচম্যান ওয়েলফেয়ার সংঘের পক্ষ থেকে নৌ পরিবহণ মন্ত্রণালয়সহ প্রশাসনের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লিখিত অভিযোগও করা হয়েছে। তবে যেসব শিপিং এজেন্ট এ নিয়ম মানছেন না তাদের বিরুদ্ধে বন্দর কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন মোংলা বন্দর স্টিভিডরিং ওয়াচম্যান ওয়েলফেয়ার সংঘের নেতৃবৃন্দ। মোংলা বন্দর স্টিভিডরিং ওয়াচম্যান ওয়েলফেয়ার সংঘের সভাপতি মো. গোলাম মোস্তফা বলেন, মোংলা বন্দরে আগত দেশি-বিদেশি জাহাজে চুরি-ডাকাতি ঠেকাতে ওয়াচম্যান নিয়োগের সিদ্ধান্ত অনেক আগের। কিন্তু এ সিদ্ধান্ত কোনোভাবেই মানছেন না সামন্দা, কনভেয়ার, ইউনি ওশান ও ইউনি গ্লোবাল শিপিং এজেন্ট। তিনি আরও বলেন, এসব শিপিং এজেন্ট জাহাজে ওয়াচম্যান নিয়োগ না দেওয়ায় জাহাজে চুরিসহ কোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে তার দায় ওইসব শিপিং এজেন্টদেরকেই নিতে হবে। এদিকে বাংলাদেশ শিপিং এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন খুলনা’র চেয়ারম্যান ক্যাপ্টেন রফিকুল ইসলাম বলেন, মোংলা বন্দরে আগত জাহাজের নিরাপত্তার স্বার্থে ওয়াচম্যান নিয়োগ বাধ্যতামূলক এবং এটা সরকারি সিদ্ধান্ত। যদি কোনো শিপিং এজেন্ট এ নিয়ম না মানে তাদের বিরুদ্ধে বন্দরের হারবার বিভাগের আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। আর এ বিষয়ে মূলত ব্যবস্থা নিতে পারেন হারবার বিভাগই, হারবার মাস্টার তাদেরকে জরিমানাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারেন। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার দুরুল হুদা বলেন, জাহাজে ওয়াচম্যান নিয়োগ না দেওয়ার বিষয়ে ইতোমধ্যে কতিপয় শিপিং এজেন্টের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

SHARE THIS NEWS

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top