Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / খুলনায় শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ

খুলনায় শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ

তথ্যবিবরণী
খুলনাবাসী গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করলো শহীদ বুদ্ধিজীবীদের। শুক্রবার শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে সকালে জেলাপ্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
খুলনা জেলা প্রশাসন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে অতিথিরা বলেন, পাকিস্তানী সামরিক বাহিনী ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় তাদের পরাজয় সন্নিকটে বুঝতে পেরে এদেশকে মেধাশূন্য করে রেখে যাওয়ার ষড়যন্ত্র করে। তারা এদেশের বুদ্ধিজীবীদের চিহ্নিত করে হত্যা করে। সেদিনের শহীদ বুদ্ধিজীবীরা বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ আজ অনেক এগিয়ে যেত। সেদিনের সেই পরাজিত শক্তির দোসররা যেন এদেশে আরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে সেজন্য নতুন প্রজন্মের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ছড়িয়ে দিতে হবে। বুদ্ধিজীবী দিবসের ইতিহাস তরুণদেরকে জানাতে হবে।
অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমীনের কন্যা অধ্যাপক ফাতেমা বেগম, অন্যতম সংবিধান প্রণেতা অ্যাডভোকেট এনায়েত আলী, সাবেক মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলমগীর কবীর, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সরদার মাহবুবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূর আলমসহ আরও অনেকে বক্তৃতা করেন।
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় : শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে সকাল ৯টায় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে শহীদ মিনারে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন। এরপরই বিভিন্ন ডিসিপ্লিন, বিভিন্ন আবাসিক হল, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, খুবি অফিসার্স কল্যাণ পরিষদ, খুবি কর্মচারীবৃন্দ ও বিভিন্ন সংগঠেনর পক্ষ থেকেও শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। পরে সকাল পৌনে দশটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে মুক্তমঞ্চে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। তিনি শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের তাৎপর্যসহ ইতিহাসের আলোকে সুদূর সক্রেটিসের আমল থেকে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তীতে বুদ্ধিজীবীদের ভূমিকা ও নানা উদাহরণ, প্রসঙ্গ তুলে ধরে সারগর্ভ বক্তব্য রাখেন। বক্তৃতা করেন একাত্তরে অনেক ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও অংশগ্রহণকারী বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য মুক্তিযোাদ্ধা প্রফেসর ড. এ কে এম নুরুন্নবী, বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়নবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা, ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক কাজী হুমায়ুন কবীর, উপ-পরিচালক (অডিট) শেখ মুজিবুর রহমান ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে বাংলা ডিসিপ্লিনের আখন্দ মোঃ খায়রুজ্জামান। সূচনা বক্তৃতা করেন ছাত্রবিষয়ক পরিচালক প্রফেসর মোঃ শরীফ হাসান লিমন। এ সময় বিভিন্ন স্কুলের ডিন, রেজিস্ট্রার, ডিসিপ্লিন প্রধান, ছাত্রবিষয়ক পরিচালক, প্রভোস্ট, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন। পরে উপাচার্য অদম্য বাংলার সামনে চারুকলা আয়োজিত চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিলো বাদ যোহর বিশ্ববিদ্যালয় জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল, সন্ধ্যায় শহীদ মিনার ও অদম্য বাংলা চত্বরে প্রদীপ প্রজ্বলন। এর আগে সকাল ৮-৩০টায় শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ ভবনের সম্মুখে কালোব্যাজ ধারণ, জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে উপাচার্যের নেতৃত্বে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণের প্রাক্কালে এক শোকর‌্যালি বের করা হয়।
খুলনা প্রেস ক্লাব : দিবস উপলক্ষে দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে এক আলোচনা সভা খুলনা প্রেস ক্লাবে শুক্রবার সকালে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফারুক আহমেদ। সভা পরিচালনা করেন ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশু। সভার শুরুতে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন খুলনা প্রেস ক্লাবের কোষাধ্যক্ষ মোঃ হেদায়েৎ হোসেন মোল্লা, নির্বাহী সদস্য কৌশিক দে, ক্লাবের সদস্য ও সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহিদ হোসেন, মোঃ সাহেব আলী ও সুবীর কুমার রায়, ক্লাব সদস্য অমিয় কান্তি পাল, মোজাম্মেল হক হাওলাদার, মোঃ শাহ আলম, মোঃ জাহিদুল ইসলাম, মাহবুবর রহমান মুন্না প্রমুখ। আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক আলমগীর হান্নান, নির্বাহী সদস্য মোঃ সাঈয়েদুজ্জামান স¤্রাট, সদস্য বাপ্পী খান, আনোয়ারুল ইসলাম কাজল, ইউজার সদস্য রীতা রানী দাস, সুদীপ দাস প্রমুখ। এর আগে ১৩ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে ক্লাবের নেতৃবৃন্দ গল¬ামারী স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সমেয় উপস্থিত ছিলেন খুলনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফারুক আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশু, নির্বাহী সদস্য ও সাবেক সভাপতি এস এম নজরুল ইসলাম, এস এম হাবিব, নির্বাহী সদস্য মোঃ সাঈয়েদুজ্জামান স¤্রাট ও সোহেল মাহমুদ, ক্লাব সদস্য ও সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু ও শেখ আবু হাসান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহিদ হোসেন ও সুবীর কুমার রায়, সাবেক সদস্য সচিব মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, সদস্য মোজাম্মেল হক হাওলাদার, মোঃ শাহ আলম, বাপ্পি খান, এইচ এম আলাউদ্দিন, রফিউল ইসলাম টুটুল, মোঃ জাহিদুল ইসলাম, প্রশান্ত বাছাড়, মাহবুবুর রহামন মুন্না, ইউজার সদস্য শরিফুল ইসলাম বনি, কাজী ফজলে রাব্বী শান্তসহ অন্যান্য সাংবাদিকবৃন্দ।
কেইউজে : সকাল এগারোটায় খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে) কার্যালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিয়নের সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেন’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম। আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন বিএফইউজের নির্বাহী সদস্য সাঈয়েদুজ্জামান স¤্রাট, বিএফইউজের সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মোজাম্মেল হক হাওলাদার, ইউনিয়নের সিনিয়র সহ-সভাপতি মল্লিক সুধাংশু, সহ-সভাপতি কৌশিক দে বাপী, ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অমিয় পাল, মোঃ সাহেব আলী, সুবীর কুমার রায়, ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনর সভাপতি বাপ্পী খান প্রমুখ। সভার শুরুতে শহীদদের প্রতি বিন¤্র শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এর আগে রাতের প্রথম প্রহরে খুলনা গল্লামারী স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।
সোনামুখ : সকাল ১১টায় সোনামুখ পরিবারের দিনটি উদ্যাপনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। দিনটি তরুণ প্রজন্মের মাঝে তাৎপর্যপূর্ণ করে তোলার জন্য কুইজ প্রতিযোগিতা, নির্ধারিত বক্তব্য প্রতিযোগিতা, আলোচনা পর্ব, পুরস্কার বিতরণী ইত্যাদি আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে মহান মুক্তিযুদ্ধের সেই লোমহর্ষক ও বীরত্বগাঁথা গল্প শোনান মুক্তিযোদ্ধা সিআইপি পদক প্রাপ্ত শিল্পপতি এ এম হারুনার রশিদ। সভাপতি মানসুরা ইসলাম ও ক্যারিশমাটিক সহ-সভাপতি ফাতিমা জান্নাতি টুম্পা এই মুক্তিযোদ্ধার মাথায় পতাকা বেঁধে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানান। স্মৃতিচারণ করেন ড. মুনীর চৌধুরী, ড. গোবিন্দ চন্দ্র দেব এর মতো নামকরা শহীদ বুদ্ধিজীবীদের সরাসরি ছাত্র যিনি বর্তমানে সারা দেশে জ্ঞানের মশাল জ্বালিয়ে চলেছেন প্রবীণ শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আব্দুল মান্নান।
সেন্ট জেভিয়ার্স হাই স্কুল : দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৯টায় বিদ্যালয়ের শহীদ শেখ আবু নাসের মিলনায়তনে এই আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়ের কার্যকরী পরিষদের সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মুন্সি মো. মাহবুব আলম সোহাগ-এর সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সদস্য মোসলেমা আহমেদ, অ্যাড. শাহারিয়া মোর্শেদা আহমেদ, মোর্শেদ আহমেদ রিপন, মাফুজ ফরিদ চৌধুরী (লোটন), কবিতা আহমেদ, মোঃ সাঈদুর রহামান সাঈদ, মারুফ চৌধুরী পমিন, পারভীন বেগম, আকতার বানু, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ শেখ, ভারপ্রাপ্ত সহকারী প্রধান শিক্ষকদ্বয়ও শিক্ষক-শিক্ষিকা, বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষক-শিক্ষিকা ম-লীর উপস্থিতিতে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথিসহ আলোচকবৃন্দ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের গণহত্যার প্রেক্ষাপটের ওপর বিস্তারিত আলোকপাত করেন। এর আগে দিবসে প্রথম প্রহরে রাত ১২.০১ মিনিটে গল্লামারী বধ্যভূমিতে শহীদদের উদ্দেশে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়।
শ্রমিক লীগ : দিবস উপলক্ষে জাতীয় শ্রমিক লীগ খুলনা মহানগর শাখার উদ্যোগে বিকেল ৫টায় সংগঠনের কার্যালয়ে সংগঠনের সভাপতি আবুল কাশেম মোল্লার সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা পরিচালনা করেন খুলনা মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক রনজিত কুমার ঘোষ। সভায় বক্তব্য রাখেন ২১, ২২ ও ২৩নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর কনিকা সাহা, মোঃ আঃ রহিম খান, কিংকর সাহা, শরীফ মোর্ত্তজা আলী, মোঃ ইউনুস মুন্সী, শেখ মোঃ রমজান, মোঃ মনিরুল ইসলাম, মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন, মোঃ আকতার হোসেন, মোঃ শরিফুল ইসলাম, এস.এম. ইমরুল আলম, মোঃ হানিফ সরদার, বিপ্লব কুমার দে, মোঃ বাবুল হোসেন, চুন্নু সিকদার, প্রশান্ত ঘোষ, মোঃ জাহিদ, মোঃ তৈয়ব আলী, মোঃ হারুন, মোঃ সাজু, মোঃ রিপন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। এছাড়া প্রথম প্রহরে রাত ১২.০১ মিনিটে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। সভার শুরুতে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। নেতৃবৃন্দ বলেন, ১৯৭১ সালের এই দিনে আমরা হারিয়েছিলাম আমাদের দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*