Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / শার্শার পদ্মবিলে অতিথি পাখির কিচিরমিচির মেলা

শার্শার পদ্মবিলে অতিথি পাখির কিচিরমিচির মেলা

যশোর ব্যুরো : মৗসুমী বায়ু পরিবর্তনের পালাবদলের সাথেই পৌষের হাড় কাঁপানো শীতেও বিভিন্ন প্রজাতির দেশি-বিদেশি পাখির আগমনে মুখরিত ও অভয়াশ্রমে পরিণত শার্শার পদ্মবিল। পঞ্চাশ গজ দূরেই ওপারে ভারতের কাঁটাতারের বেড়া। পাশেই সবুজ বেষ্টনীতে ঘেরা শার্শা উপজেলার দুর্গাপুরের ৬৫ বিঘার জমিতে বিশাল জলাশয় পদ্মবিলে হরেক রকম পাখির অভয়ারণ্য গড়ে উঠেছে। নিরিবিলি মনোরম পরিবেশে গড়ে ওঠা অভয়াশ্রমে পাখির কলতানে মুখরিত এলাকা। প্রতিদিন এ দৃশ্য উপভোগ করছে বিভিন্ন এলকা থেকে আসা পাখিপ্রেমী মানুষেরা।
দুর্গাপুর গ্রামের হাজী গোলাম মোর্শেদের বেড়িবাঁধের জলাশয়ে চরছে সরাইল, পানকৌড়ি, ডংকুর, বেগ, কাসতেচুড়া। পাখির অভয়ারণ্যে প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকা থেকে আসছে নারী শিশুসহ দর্শনার্থীরা। উপভোগ করছে প্রাকৃতিক দৃশ্য। নিরাপদ ও এলাকাবাসীর কড়া নজরদারী থাকায় সবুজ বেষ্টনীতে ঘেরা জলাশয়ে পাখির অভয়ারণ্য গড়ে উঠেছে বলে জানান, দেশি ও বিদেশি জাতের বিভিন্ন স্থান থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে আসছে অতিথি পাখি। দেখছে সবাই প্রাণভরে মন জুড়াচ্ছে ঘুরে ফিরে। গ্রাম ও শহর থেকে আসছে মানুষ অতিথি পাখির অভয়াশ্রমে-প্রকৃতির দৃশ্য দেখছে ও পাখির আওয়াজ শুনছে তারা প্রাণ খুলে।
পাখির কিচির-মিচিরে মুগ্ধ তারা, বলেন দর্শনার্থী আব্দুল জববার ও আলী হোসেন। তারা বলেন, শিশু যেমন মাতৃক্রোড়ে সুন্দর, তেমনি পাখি সুন্দর বনে জলাশয়ে নির্জনে। এ অভয়াশ্রমে এসে পুলকিত তারা। গ্রামের লোকজনের সহযোগিতায় গড়ে উঠছে পাখির অভয়াশ্রম। আসছে হাজার হাজার পরজয়া পাখি। দেখছে মানুষেরা। তবে, নাজুক যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে কম দর্শনার্থী আসছে বলে জানান স্থানীয়রা। এ গ্রামের শামিম হোসেন ও আরমান আলী বলেন, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে আসেননি আজও। নেননি কোনো খোঁজ খবর। উপজেলা প্রাণিসম্পদ ও বন বিভাগের সহযোগিতা কামনা করে তারা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*