Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / সাতক্ষীরায় ঠা-াজনিত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে

সাতক্ষীরায় ঠা-াজনিত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে

হাসপাতালে পর্যাপ্ত বেড না থাকায় ভোগান্তি

বদিউজ্জামান, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে কোল্ড ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। সেবা প্রদানে হিমশিম খাচ্ছে কর্তব্যরত চিকিৎসক ও সেবিকারা। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহ হাসপাতালে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, জ্বর, সর্দি-কাশিসহ বিভিন্ন ঠা-াজনিত রোগীর সংখ্যা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।
ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ৫টি বেডের বিপরীতে ৪০ রোগী ভর্তি রয়েছে। এর মধ্যে ৫ থেকে ১৯ মাস বয়সীর শিশুর সংখ্যা বেশি। পর্যাপ্ত বেড না থাকায় এই ওয়ার্ডের কোমলমতি শিশুদের প্রচ- শীতে বারান্দায় বিছানা পেতে সেবা নিতে হচ্ছে। অপরদিকে হাসপাতালে নির্ধারিত শিশু ওয়ার্ডে নিউমোনিয়া, জ্বর, শ্বাসকষ্টের রোগী ভর্তি রয়েছে ৩৭ জন। এছাড়া নবজাত শিশুদের পরামর্শ কেন্দ্র ০ থেকে ২৮ দিন বয়সী শিশু রয়েছে ১২টি।
সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ শামছুর রহমান জানান, শীতকালে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা অধিক হারে বৃদ্ধি পায়। তিনি আরও বলেন, শীতে রান্না খাবার ভাল থাকে জেনে সকালের খাবার দুপুরে বা রাতে খাওয়া হয়। এতে ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আবার শিশুদের শুকনা খাবার টোস্ট, কেক, ড্রাইকেক, চিপস এবং ভাজা জাতীয় মুখরোচক খাবারেও কোল্ড ডায়রিয়া হয়ে থাকে। যা বমির মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে পরবর্তীতে পাতলা পায়খানায় পরিণত হয়। এতে আস্তে আস্তে দুর্বল হয়ে পড়ে শিশুরা, তবে ভয়ের কারণ নেই যথাসময়ে চিকিৎসা প্রদান করলে স্বাভাবিক হয়ে ওঠে।
সিভিল সার্জন ও হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে ডায়রিয়া বেডের সংখ্যা সামান্য ও চিকিৎসকের সঙ্কট, শিশু চিকিৎসকের ব্যাপারে বারবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে লিখিত আবেদন করা হচ্ছে এবং ডায়রিয়া ওয়ার্ডে বেড ও জায়গা বৃদ্ধির জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। সাতক্ষীরা জেলার ভুক্তভোগী রোগীর অভিভাবকরা সাতক্ষীরায় দ্রুত শিশু চিকিৎসকসহ অন্যান্য চিকিৎসক প্রদানের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা কামনা করেছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*